জুকারবার্গের এমন সিদ্ধান্ত কেন? ‘মেটা’ হচ্ছে ফেসবুকের নতুন নাম

|

জল্পনাটা চলছিল যে নাম বদলে যাচ্ছে ফেসবুক (Facebook) সংস্থার। তবে অ‌্যাপের নাম বদল নয়। বদলে যাবে শুধুমাত্র ফেসবুক সংস্থাটির নাম। বৃহস্পতিবার সংস্থার বার্ষিক সম্মেলনে কোম্পানির নতুন নাম ঘোষণা করলেন সিইও মার্ক জুকারবার্গ (Mark Zuckerberg)। জানালেন সংস্থার নাম হচ্ছে ‘মেটা’।

কিন্তু কেন এমন নাম? কোম্পানির নাম বদলের কারণ হিসাবে জুকারবার্গ বলেন, ‘‘সামাজিক সমস‌্যা নিয়ে লড়াইয়ের মধ্যে থেকে আমরা অনেক কিছু শিখেছি। এতদিন একটা সীমার মধ্যে বদ্ধ ছিলাম। এবার সেই সীমা ছাড়িয়ে নতুন পর্যায়ের সফর শুরু হয়েছে। আমাদের সংস্থার এখন যে নাম আছে, তাতে আমাদের কাজের পুরো প্রতিফলন ঘটে না। সংস্থাকে একটি ‘মেটাভার্স’ সংস্থা হিসাবে প্রতিষ্ঠা করার জন‌্যই নামবদল করা হল।’’

‘মেটাভার্স’ হল সামাজিক যোগাযোগের একটি ভিন্নস্তর। একটি অধিবাস্তব দুনিয়া। এই দুনিয়ায় মানুষ সব কাজই করতে পারবেন ভারচুয়ালি। ‘মেটাভার্স’-এর কথা মাথায় রেখেই সংস্থার নামবদল বলে জুকারবার্গের দাবি। এই ‘মেটাভার্স’ তথা অধিবাস্তবের দুনিয়ায় ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম, হোয়াটসঅ‌্যাপ আগের তুলনায় অনেক বেশি আকর্ষণীয় হয়ে আত্মপ্রকাশ করবে। তবে জুকারবার্গ জানিয়েছেন, হোয়াটসঅ‌্যাপ, ইনস্টাগ্রাম, ওকুলাস ইত‌্যাদি অ‌্যাপের মতো ফেসবুক অ‌্যাপটিও যেমন আছে তেমন থাকবে। সাধারণ নেটিজেনদের কৌতূহল ফেসবুক অ‌্যাপটির নামবদল হচ্ছে কিনা তা নিয়ে। সেটি আপাতত হচ্ছে না।

১৭ বছর আগে জুকারবার্গ হার্ভার্ডে পড়ার সময় ফেসবুক নামটি পেয়েছিলেন। ফেসবুক ডিরেক্টরিজ থেকে সোশ‌্যাল মিডিয়া অ‌্যাপটির নাম ফেসবুক হয়েছিল। অ‌্যাপের নাম ফেসবুক থাকলেও জুকারবার্গের সংস্থা আর ফেসবুক ইনকর্পোরেশন রইল না। নামের সঙ্গে সঙ্গে জুকারবার্গ এদিন তাঁর সংস্থার নতুন লোগো প্রকাশ করেছেন। সমালোচকদের একাংশের বক্তব‌্য হল, সম্প্রতি নানা ধরনের বিতর্কে জড়িয়েছে ফেসবুক সংস্থা। ফেসবুকের তথ‌্য ফাঁস থেকে শুরু করে নানা প্রযুক্তিগত বিভ্রাট নিয়েও আলোড়ন পড়েছে বিশ্বে। সংস্থার শেয়ার দরও পড়েছে। এইসব সমস‌্যা সংস্থার নাম বদলে দেওয়ার মূলে।








Leave a reply