সব সময় পেছনে ফেলে যাওয়া সৃতি নিয়ে ভয়ের কারণটা জেনে নিন

|

ফোমোর অর্থ ‘হারিয়ে যাওয়ার ভয়’ বা স্থানীয় ভাষায় পিছনে থাকার ভয় ।যদি আপনারও যদি এমন ভয় থাকে যে আপনাকে সর্বদা আড়াল করে রাখে তবে আপনি মানসিক ব্যাধির শিকার হয়েছেন। সাধারণত মানুষের এই ব্যাধি হওয়ার কারণ হ’ল তাদের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলি…

মানুষের স্বভাব হ’ল আমরা প্রতিনিয়ত নিজেকে অন্যের সাথে তুলনা করি। আমরা প্রায়শই অনুভব করি যে অন্যের জিনিসগুলি আমাদের চেয়ে ভাল এবং এই চিন্তাভাবনার কারণে আমরা নিজেরাই কম মূল্যায়ন করতে শুরু করি। আমাদের এই মানসিক সমস্যা আরও বেড়ে যায় যখন কোনও ব্যক্তি নতুন বা আরও বড় কিছু অর্জন করে।

ফোমোর ক্ষতিগ্রস্থরাও তাদের জীবনে ছোট ছোট সমস্যাগুলি অনুভব করেন যেন কোনও বড় দুর্ঘটনা ঘটেছে। তিনি অনুভব করেন যে পৃথিবীর সমস্ত ঝামেলা তাঁর জীবনে এসেছে।

প্রধানত ফোমো এমন একটি মানসিক অবস্থা যা লোকেরা অন্য মানুষের জীবন থেকে বেরিয়ে আসার বা তাদের জীবনে তাদের গুরুত্ব হারিয়ে যাওয়ার ভয়ের সাথে সম্পর্কিত। এটি মানুষের মধ্যে নিখোঁজ হওয়ার ভয় তৈরি করে।

ফোমো একটি বাধ্যতামূলক আকাঙ্ক্ষা, যেখানে সর্বদা অন্য মানুষের জীবনের সাথে যুক্ত হওয়ার ইচ্ছা থাকে। বিশেষত সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে। এই জাতীয় ব্যক্তিরা ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রাম বা গণ ভিডিওর মতো সামাজিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অন্য মানুষের জীবনে তাদের গুরুত্ব দেখতে পছন্দ করে এবং তাদের জীবনের সাথে যুক্ত হতে ভালোবাসে।

ফোমোর লোকেরা সোশ্যাল মিডিয়ায় সারাক্ষণ চেক করে রাখে যে অন্যান্য লোকেরা কী পোস্ট করছে, তাদের জীবনে নতুন কী বা আমাদের পোস্টগুলিতে লোকেরা কীভাবে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছে? আমাদের পোস্টে কয়টি লাইক পাওয়া গেছে?

অনেক গবেষণায় জানা গিয়েছে যে সমস্ত সময় সোশ্যাল মিডিয়াতে সচল থাকা ব্যক্তিরা অনেকগুলি মানসিক অসুস্থতার শিকার হন। এই ধরনের লোকেরা উদ্বেগ, মেজাজের দোল, একাকীত্ব, নিরাপত্তাহীনতা, আত্মবিশ্বাস হ্রাস, সামাজিক নিরাপত্তাহীনতা বা উদ্বেগ, খুব বেশি নেতিবাচকতা এবং হতাশার মতো রোগেরও মুখোমুখি হচ্ছেন।

গত কয়েক বছরে এন্টিডিপ্রেসেন্ট ড্রাগগুলির ব্যবহার বহুগুণ বেড়েছে। এই সমস্যাটি এড়াতে প্রথমে আপনার সামাজিক মিডিয়া ব্যবহার হ্রাস করা গুরুত্বপূর্ণ। ভার্চুয়াল জগতে নয়, আপনার সুযোগ বৃদ্ধি করুন এবং আসল বিশ্বে মানুষের কাছে পৌঁছান। পরিস্থিতি যদি সম্ভব না হয় তবে সাইকেল চালকদের সহায়তা নিন।








Leave a reply