যেসব খাবার খাওয়ালে অন্য বাচ্চাদের মতো আপনার বাচ্চা ও লম্বা হবে

|

লম্বা হয়ে সবাই জন্মায় না। মানুষের উচ্চতায় বংশানুক্রম একটা গুরুত্বপূর্ণ কারণ। কিশোর বয়সে কিছু জিনিস করলে সর্বোচ্চ উচ্চতা পাওয়া যেতে পারে, তার মধ্যে একটা হল সঠিক খাওয়া দাওয়া। লম্বা হওয়ার জন্য অনেকে, শুধু স্ট্রেচিং বা স্কিপিং করেন। কিন্তু তার সঙ্গে কিছু অত্যাবশ্যক ভিটামিন ও মিনারেলও আছে, যেগুলো শরীরের জন্য প্রয়োজন।

জেনে নিন কি খেলে ও কি করলে দেহের উচ্চতা বাড়বে-

ডিম
ডিম একটি স্বাস্থ্যকর খাবার। ডিমে রয়েছে প্রচুর প্রোটিন। এর ফলে লম্বা হতে সাহায্য করে ডিম।

মাছ
মাছ সামুদ্রিক মাছ প্রোটিন ও ভিটামিনে ভরপুর। স্যালমন ও টুনার মত মাছে আছে প্রচুর মাত্রায় ভিটামিন ডি ও প্রোটিন, যেটা আপনার উচ্চতা বাড়াতে সাহায্য করে।

অ্যাভোকাডো
দুপুরে খাবারের সময় অর্ধেকটা এভোকাডো খেলে বিভিন্ন পুষ্টি সরবরাহ করে থাকে।

সয়া
সয়া হাড়ে যাতে ভিটামিন ও ক্যালসিয়াম সঠিক ভাবে প্রবেশ করে, তাই সয়াযুক্ত খাবার অবশ্য্ই খান। যেমন ধরুন, সয়াবীন ও সয়াযুক্ত দুধ।

বাদাম
বাদাম বা কাজুবাদাম স্বাস্থ্য উপযোগী একটি খাবার। এতে ভিটামিন প্রোটিন আছে যা লম্বা হতে সাহায্য করে।

ছোলা, মটর শুটি, মুসুর
এই ধরনের খাবার গুলিতে রয়েছে প্রচুর প্রোটিন ভিটামিন বি ও আয়রন যা শরীরের কোষ বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

টোফু
টোফু ক্যালসিয়াম সমৃদ্ধ ও কম ক্যালোরিযুক্ত টোফু একটা অতি আবশ্যক খাবার নিজের খাদ্য তালিকার জন্য। টোফুতে মেদ বা ফ্যাট কম, এবং ওজন কমাতেও সাহায্য করে থাকে।

আপেল
আপেলে থাকা ফাইবার লম্বা হতে সাহায্য করে। খাবার খাওয়ার আধঘণ্টা আগে একটা করে আপেল খেতে হবে।

দুধ
দুধ এমন এক পুষ্টিকর পানীয় যা লম্বা হতে সাহায্য করে। কারণ দুধে আছে ক্যালসিয়াম।

জাঙ্ক ফুড, চিনি ও কার্বনেটেড ড্রিঙ্কস থেকে দূরে থাকুন
জাঙ্ক ফুড, স্যাচুরেটেড ফ্যাট, কার্বনেটেড ড্রিঙ্কস অতিরিক্ত চিনিতে ধরনের খাবার থেকে দূরে থাকতে হবে।








Leave a reply