দিনে নয়, রাতেই মাপুন ব্লাড প্রেশার! জেনে নিন কারণ

|

জানেন কি আমাদের শরীরের রক্তচাপ দিনে এবং রাতে কিন্তু আলাদা আলাদা হতে পারে। রাত্রিবেলা ব্লাড প্রেশারের রিডিং দিনের থেকে আলাদা হতে পারে। রাতে অনেক সময় ব্লাড প্রেশার বেড়ে যায়। ডাক্তারি পরিভাষায় এটি নকটারনাল হাইপারটেনশন নামে পরিচিত। এই নকটারনাল হাইপারটেনশনের ফলে এমনকি হার্ট ফেইল পর্যন্ত করে যেতে পারে।

এই কারণেই এখন ডাক্তাররা বলছেন যে দিনের থেকে রাতে রক্তচাপ পরিমাপ করা বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা অনেকেই মনে করে যে রাতের বেলা আমাদের শরীর অনেক বেশি শান্ত থাকে। কিন্তু ঘটনা হল যে এমনকি ঘুমের মধ্যেও রক্তচাপ আচমকা বেড়ে যেতে পারে। দিনের বেলা যাদের রক্তচাপ স্বাভাবিক, তাঁদেরও রাতের বেলা নকটারনাল হাইপারটেনশন হতে পারে।

এমন নয় যে দিনের বেলা ব্লাড প্রেশার মাপা একেবারেই ঠিক নয়। দিনে ও রাতে শরীরের রক্তচাপ পরিমাপ করার আলাদা আলাদা প্রয়োজনীয়তা ও গুরুত্ব রয়েছে। দিনে ও রাতে ব্লাড প্রেশার রিডিং আমাদের শরীর ও স্বাস্থ্য সম্পর্কে আলাদা আলাদা তথ্য তুলে ধরে। তাই দিনে ও রাতে ব্লাড প্রেশার মাপার মধ্যে পার্থক্য আমাদের বুঝতে হবে। তবে কারোর হার্টের অবস্থা কেমন, তা জানার জন্য রাতের বেলা ব্লাড প্রেশার মাপা বেশি প্রয়োজনীয়।

বেশিরভাগ মানুষই যেহেতু দিনের বেলা ব্লাড প্রেশার মাপেন, তাই নকটারনাল হাইপারটেনশনের আশঙ্কা থেকেই যায়। নকটারনাল হাইপারটেনশন থেকে শরীরের বিভিন্ন অঙ্গ কাজ করা বন্ধ করে দিতে পারে। আমেরিকান হার্ট অ্যাসোসিয়েশনের একটি জার্নালে সম্প্রতি প্রকাশিত হয়েছে যে, যাঁরা রাতে ঘুমনোর সময় রক্তচাপ বেড়ে যাওয়ার সমস্যায় ভোগেন, তাঁদের হার্টের অসুখ, স্ট্রোক, করোনারি আর্টারির সমস্যা দেখা দিতে পারে।

চিকিত্‍সকদের বক্তব্য অনুযায়ী, আমাদের শরীরের সোডিয়াম নিঃসরণের ওপরে উচ্চ রক্তচাপ জড়িত। এই প্রক্রিয়া সাধারণত দিনের বেলা ঘটে। কিন্তু যাদের নুনে সমস্যা আছে বা অনেকটা নুন খেয়ে থাকেন তাঁদের রাতও ঘুমের মধ্যে সোডিয়াম নিঃসরণ হতে পারে। এই প্রক্রিয়া হার্টের জন্য অত্যন্ত ক্ষতিকর। তাই রাতে রক্তচাপ বেড়ে যাওয়া সত্যিই খুব ঝুঁকিপূর্ণ।








Leave a reply