ছোট থেকে যে ৪ খাবার খেলে শিশুর বুদ্ধি বিকাশ বাড়ে

|

সাধারণভাবে আমরা শিশুর শারীরিক বিকাশে যতটা মনোযোগ দিই, মানসিক বিকাশে ততটা মনোযোগ দেওয়ার প্রয়োজনীয়তা বোধ করি না। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, শিশুর মানসিক বা বুদ্ধি বিকাশে যত্ন নেওয়া জরুরি। এ জন্য শিশুর খাবারের প্রতি অবশ্যই অত্যন্ত যত্নবান হতে হবে। সাধারণত পাঁচ বছর বয়সের মধ্যেই শিশুর মস্তিষ্কের প্রায় সার্বিক গঠন ও বিকাশ সম্পন্ন হয়। তাই বিশেষ করে পাঁচ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুর খাদ্যযত্ন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

চলুন জেনে নেওয়া যাক শিশুর মানসিক বিকাশে উপকারি এমন কিছু খাবারের বিষয়ে—

ডিম
ডিমে প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন ও অন্যান্য জরুরি পুষ্টির উপাদান থাকে। সুষম খাদ্য হিসাবেও নিয়মিত ডিম খেতে বলেন পুষ্টিবিদরা। বিশেষ করে ডিমে থাকে ‘কোলিন’ নামক উপাদান। এই কোলিন মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ও স্মৃতিশক্তি বৃদ্ধিতে সহায়তা করে।

দুধ
দুধ ও দুগ্ধজাত খাদ্যে থাকে ভিটামিন ‘ডি’। এই ভিটামিন স্নায়ুতন্ত্রের স্বাস্থ্য রক্ষা করতে ও স্নায়ুকোষের আয়ু বৃদ্ধি করতে সহায়তা করে।

রঙিন শাকসবজি
টম্যাটো, মিষ্টি আলু, কুমড়ো কিংবা গাজরের মতো সবজিতে ক্যারোটিনয়েড জাতীয় উপাদান থাকে। এই উপাদান একাধিক স্নায়ু ভালো রাখতে সহায়তা করে। বিশেষ করে চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে ক্যারোটিনয়েডের জুড়ি মেলা ভার। এই সবজিগুলো অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টে ভরপুর। তা মস্তিষ্কের কোষের বৃদ্ধি ও স্বাস্থ্য রক্ষায় সহায়তা করে। খাওয়াতে পারেন বিভিন্ন ধরনের শাকও। মস্তিষ্কের বিকাশে ব্রাহ্মী শাকও অনেক কার্যকর।

স্যামন মাছ
বাঙালির রান্নাঘরে এই মাছ খুব একটা দেখা যায় না। কিন্তু একটু খোঁজ নিলে এই মাছের কিনতে পাওয়া কঠিন নয়। স্যামন মাছ ‘ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিড’-এ সমৃদ্ধ। তা ছাড়া, এই মাছে থাকে ‘ডিএইচএ’ ও ‘ইপিএ’ নামের দু’টি উপাদান, যা মস্তিষ্ক ভালো রাখতে সাহায্য করে।








Leave a reply