বাস্তুদোষ কাটিয়ে সৌভাগ্য ফেরানোর ৩টি ঘরোয়া টোটকা

|

আমরা অনেকেই বাড়ি তৈরি করার সময় বাস্তু না মেনেই বাড়ি তৈরি করি না। যার ফলে বাড়ির মধ্যে নানান রকম সমস্যা তৈরি হতে পারে। আপনারা হয়ত অনেকেই ভাবছেন এগুলো কুসংস্কার। এগুলো কিন্তু একেবারেই কুসংস্কার নয়। কারণ বাস্তুদোষ যদি থাকে তাহলে কিন্তু পরিবারের সদস্যদের মধ্যে সমস্যা থেকে শুরু করে নানান রকম অর্থনৈতিক সমস্যা, শারীরিক সমস্যা, দাম্পত্য কলহ ইত্যাদির করতে পারে। কিন্তু আবার বাড়ি না ভেঙ্গেও আপনি বাস্তু দোষ কাটাতে পারেন। কয়েকটি সহজ টোটকা মাধ্যমে জেনে নিন, কিভাবে বাড়ি না ভেঙেও আপনি আপনার বাড়ির বাস্তুদোষ কাটিয়ে সমস্ত সমস্যার সমাধান করতে পারবেন। বাস্তুবিদ্যা প্রাচীনকাল থেকে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। সুতরাং এগুলো কোন কুসংস্কার নয়।

১) অনেক সময় এমনভাবে বাড়ি বানানো হয় যেখানে বাথরুম আর রান্নাঘরের দরজার সামনে সামনে থাকে। বাস্তু মতে, এটি কিন্তু আপনার জন্য অশুভ বার্তা বয়ে নিয়ে আসতে পারে। তাই কখনো বাথরুম ও রান্নাঘরের দরজা কে মুখোমুখি করবেন না। কিন্তু অনেক সময় এমনটা হয় বাড়ি বানানোর পর যদি আপনি এটি জানতে পারেন, তাহলে রান্নাঘর এবং বাথরুম কোনটাই ভাঙ্গা সম্ভব হয় না। তখন মাঝখান দিয়ে একটা মোটা পর্দা লাগিয়ে দেবেন। যাতে বাথরুম থেকে বেরোনোর সময় আপনি রান্নাঘর সহজে দেখতে না পান অথবা উল্টোটা।

২) বাড়িতে যদি দেখেন অনেক অশুভ শক্তি থাকছে, অথবা নিত্যদিন নানান রকম সমস্যায় জর্জরিত হচ্ছেন, তাহলে কিন্তু অবশ্যই বাড়ির প্রবেশদ্বার এর দিকে স্বস্তিক চিহ্ন এঁকে দেন। বাড়ির প্রবেশদ্বার এর দিকে যদি স্বস্তিক চিহ্ন এঁকে দেন। তাহলে কিন্তু আপনার বাড়িতে নেতিবাচক শক্তিরা প্রবেশ করতে পারবে না। অনেক পরিমানে পজিটিভ এনার্জি আপনার গৃহে প্রবেশ করবে, যার প্রভাবে আপনার গৃহের শান্তি বজায় থাকবে।








Leave a reply