মুক্তিযোদ্ধাদের ওপর হামলা, ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের

|

এবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সামনে মুক্তিযোদ্ধাদের অবস্থান কর্মসূচিতে হামলার অভিযোগে ২৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। গতকাল সোমবার মধ্যরাতে কোতোয়ালি থানায় দায়ের করা এ মামলার আসামিদের মধ্যে রয়েছেন- বাঁশখালী পৌর মেয়র শেখ সেলিমুল হক চৌধুরী, বাঁশখালির এমপি মোস্তাফিজুর রহমানের ব্যক্তিগত সচিব মো. তাজুল ইসলাম ও এপিএস মোস্তাফিজুর রহমান রাসেল।

মামলা দায়েরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন।

মুক্তিযোদ্ধা ডা. আলী আশরাফের স্বজন জহির উদ্দিন বাবর ২৬ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৫০-৬০ জনের বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করেন। আসামিদের মধ্যে এপিএস রাসেলসহ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গত ২৬ জুলাই মারা যান মুক্তিযোদ্ধা আলী আশরাফ। মৃত্যুর পর তাকে রাষ্ট্রীয় সম্মান না দেয়াকে কেন্দ্র করে ঘটে যায় নানা ঘটনা। এর মধ্যে মুক্তিযোদ্ধা আলী আশরাফকে নিয়ে স্থানীয় এমপি মোস্তাফিজুর রহমান বিতর্কিত মন্তব্য করা ছাড়াও মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে অবমাননাকর বক্তব্য দেন বলে অভিযোগ তাদের।

এর প্রতিবাদে সোমবার দুপুরে জামালখানে প্রেস ক্লাবের সামনে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ও সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা শাখা যৌথভাবে মানববন্ধন ও অবস্থান কর্মসূচি আয়োজন করে। কিন্তু মোস্তাফিজুর রহমানের অনুসারীরা হামলা চালিয়ে অনুষ্ঠান পণ্ড করে দেয়। এতে আহত হন মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিকসহ ২৫ জন। এরপর লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ।

এদিকে হামলার ঘটনার পর মহানগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কমান্ডার মোজাফফর আহমদের নেতৃত্বে জামালখানে তাত্ক্ষণিক প্রতিবাদ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সমাবেশে বক্তব্য দেন যুবলীগের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ মাহমুদুল হক, নুরুল আজিম রনিসহ মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের নেতাকর্মীরা।

সমাবেশে কমান্ডার মোজাফফর আহমদ মোস্তাফিজুর রহমানকে আওয়ামী লীগের সব পদ ও সংসদ সদস্য পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আহ্বান জানান।








Leave a reply