সেই বাইকার কনে ফেসবুকে সমালোচনা বিব্রত !

|

যত দোষ আমার বাইক চালানো নিয়ে। মানুষ গায়ে হলুদের দিন কতকিছু পড়ছে, কতকিছু করছে তাতে দোষ নেই। ব্যতিক্রম কিছু দেখলেই এক শ্রেণির লোক আছে যাদের বাজে কথা বলতেই হবে।” এভাবে কথাগুলো বলছিল খুলনার মেয়ে ফারাহানা।

গায়ে হলুদের সাজে এক কনে মোটরবাইক চালাচ্ছেন। তার পেছনে একই রঙের পাঞ্জাবি পরিহিত একদল যুবক। শহরের রাস্তায় মোটর শোভাযাত্রা। এমন ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তোলপাড় হয়েছে। আর তিনি হলেন যশোর শহরের সার্কিট হাউস এলাকার বাসিন্দা ফারহানা আফরোজ।

ফারহানা যশোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয় থেকে ২০১১ সালে এসএসসি ও ২০১৩ সালে যশোর আব্দুর রাজ্জাক কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এখন তিনি ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি থেকে এইচআর’এ এমবিএ করছেন।

গত ১৩ আগস্ট গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান ঘিরে এমন আয়োজন করেন ফারহানা। ফারহানা জানান, সবাই নেচেগেয়ে উদযাপন করেছি গায়ে হলুদের অনুষ্ঠান। আমি যেহেতু বাইক চালাতে পারি তাই বাইক চালিয়ে অনুষ্ঠান করেছি। ব্যতিক্রমী কিছু করার ভাবনা থেকেই এমন আয়োজন। এটি আমার নিজস্ব উদ্যোগে করেছি।

ফারহানা আফরোজের বাড়ি যশোর সার্কিট হাউজের সামনে। যশোর সরকারি বালিকা বিদ্যালয় থেকে ২০১১ সালে এসএসসি ও ২০১৩ সালে যশোর আব্দুর রাজ্জাক কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন। এখন ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (ডিআইইউ) থেকে এইচআর-এ এমবিএ করছেন ফারহানা।

ফারহানা আফরোজ জানালেন, ২০০৭ সাল থেকে তিনি বাইক চালান। বিয়ের অনুষ্ঠানকে ব্যতিক্রমী করতে ভিন্নধর্মী ভাবনা তার মাথায় ছিল। এই ভাবনা থেকেই তিনি এমন আয়োজন করেছেন। বিয়ে, গায়ে হলুদের অনুষ্ঠানে সবাই নেচেগেয়ে উৎসব করেছেন।

আমি যেহেতু বাইক চালাতে পারি; তাই বাইক চালিয়েই গায়ে হলুদ ও বিয়ের অনুষ্ঠানে এন্ট্রি দেয়ার পরিকল্পনা ছিল। সেই হিসেবে বাইকেই এন্ট্রি দিলাম। ভিডিও ধারণ, ছবি তোলা হল। শহর ঘুরলাম। সঙ্গে ছিল বন্ধুবান্ধব, স্বজনরা। তাদের গায়েও একই রঙের পাঞ্জাবি ছিল। যশোরের প্রেক্ষাপটে ব্যতিক্রমী ছিল। মূলত ব্যতিক্রমী কিছু করার ভাবনা থেকেই এমন আয়োজন করেছি।

ফারাহানা আরও বলেন, এই ব্যতিক্রম আয়োজন কোনভাবেই মানছেন না এক শ্রেণির মানুষ। তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে নানান ভাবে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করছে। বিভিন্ন ফেসবুক ভিত্তিক পেইজ ও গ্রুপে আমার অনুমতি ছাড়ায় বিয়ের ছবিগুলো নিয়ে বাজে বাজে স্ট্যাটাস দিচ্ছে, কমেন্টস করছে।

তিনি বলেন, আমি বাইক চালাতে পাড়ি তাই শুধু বাইক চালিয়েছি। দয়া করে আমাকে নিয়ে বিব্রত মন্তব্য করে আপনার মূল্যবান সময় নষ্ট করবেন না। আমি আশা করবো, এসব নেগেটিভ মানুষিকতার গন্ডি থেকে বেড়িয়ে আসবেন।








Leave a reply