পিএসজির হারের পর উত্তাল হয়ে উঠল প্যারিস

|

প্রতিষ্ঠার ৫০ বছর পর প্রথমবারের মতো ইউরোপের শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে পিএসজি। কিন্তু ফাইনালে বায়ার্ন মিউনিখের বিপক্ষে মাত্র ১ গোলের ব্যবধানে হেরে রানার্সআপ হতে হয় ফ্রান্সের সবচেয়ে শক্তিশালী ক্লাবটিকে। দল প্রথমবারের মতো ফাইনালে উঠায় সমর্থকরা আশায় বুক বেঁধেছিলেন ইউরোপ সেরার মুকুট ফ্রান্সে নিয়ে আসবে তাদের প্রিয় দল। কিন্তু তা আর হয়নি। অল্পের ব্যবধানে তা হাত থেকে ফসকে গেছে। দীর্ঘ ৫০ বছরের অপেক্ষার পরও শিরোপা এনে দিতে না পারায় তাদের অপেক্ষা পরিণত হয় ক্ষোভে। আর সেই ক্ষোভ থেকে প্যারিসে রবিবার তান্ডব চালিয়েছে ক্লাবটির সমর্থকরা। তারা রীতিমতো রণক্ষেত্রের মতো অবস্থা তৈরি করেছিল পিএসজির স্টেডিয়ামের আশপাশের এলাকায়। গাড়িতে আগুন লাগানো, দোকান ভাঙচুরের মতো ঘটনা ঘটিয়েছে হাজারখানেক উশৃঙ্খল সমর্থক।

প্রিয় দলের খেলা দেখতে পিএসজির স্টেডিয়ামের আশপাশে জড়ো হয়েছিল প্রায় ৫ হাজার দর্শক। তারা বড় পর্দা টানিয়ে খেলা দেখার ব্যবস্থা করেছিল দল জয় পেলে উল্লাসে ফেটে পড়বেন এই চিন্তায়। কিন্তু ম্যাচের ৬০ মিনিটের সময় পিএসজি ম্যাচের একমাত্র গোলটি হজম করে। ওইখানে থাকা এক প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন পিএসজি গোলটি হজম করার পরই বেশ কিছু সমর্থক ধ্বংসযজ্ঞ চালাতে শুরু করেন। এরপর ম্যাচের শেষ বাঁশি বাজার সঙ্গে সঙ্গে তা চরম পর্যায়ে পৌঁছায়। সমর্থকরা প্রথমে পুলিশের একটি সাদা গাড়িতে আক্রমণ করে। এরপরই পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাস্তায় নামে। তখন উপস্থিত থাকা দাঙ্গা পুলিশ সমর্থকদের থামানোর জন্য টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে। ওই উশৃঙ্খল সমর্থকরা পুলিশকে লক্ষ্য করে আতশবাজি নিক্ষেপ করতে থাকে। এরপর তারা গাড়িতে আগুন ধরানো ও দোকানে ভাঙচুর চালায়। জানা যায়, অন্তত ৫টি গাড়িতে আগুন দিয়েছে তারা। তাছাড়া ভাঙচুর করেছে অন্তত এক ডজন দোকানে।

ফ্রান্সের পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে এমন ধ্বংসযজ্ঞ চালানোর কারণে গত রাতে মোট ১৪৮ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা জানিয়েছে আরো যারা এই কাজে জড়িত ছিল তাদেরও খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। এদিকে খেলা শুরু হওয়ার আগে পিএসজির সমর্থকরা ক্লাবের পতাকা, আতশবাজি ও বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ে জড়ো হতে থাকে। তারা আশা নিয়ে আসে তাদের ক্লাব শিরোপা জয় করবে আর তারা উল্লাসে মেতে উঠবে। কিন্তু দল হারার কারণে তা রূপ নেয় দাঙ্গায়।








Leave a reply