বার্সা মেসিসহ মাত্র ৮ জন খেলোয়াড় কে রাখতে চায় !

|

এটা অবাক করা হলেও সত্য, এমনই ঘোষণা দিয়েছেন ক্লাব সভাপতি হোসে মারিয়া বার্তমেউ। পুরো ক্লাবকে বদলে ফেলার অংশ হিসেবে ফুটবলারদেরও একটা বড় অংশকে ছাঁটাই করে ফেলতে চান তিনি। আর সে তালিকায় আছে ক্লাব কিংবদন্তি জেরার্ড পিকে, লুইস সুয়ারেজদের নামও।

ক্লাবের নিজস্ব সাইটকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বার্তামেউ জানিয়ে দেন আগামী মৌসুমের জন্য তারা কাকে ক্লাবে রাখতে চান। সেই তালিকায় তিনি রেখেছেন মাত্র ৮ জন ফুটবলারকে।

স্বভাবতই বিশ্বসেরা ফুটবলার লিওনেল মেসিকে কোনভাবেই হারাতে চায় না ক্লাবটি। যদিও মেসির ক্লাব ছাড়ার গুঞ্জনটা দিনদিন বেশ জোরালোই হচ্ছে। তবে বার্তামেউ আশা করেন, শেষপর্যন্ত ক্লাবে থাকবেন আর্জেন্টাইন ক্ষুদে জাদুকর।

মেসি ছাড়াও বার্তামেউ’র দেয়া তালিকায় আছেন, গোলকিপার মার্ক টের স্টেগান, ডিফেন্ডার নেলসন সেমেদো, ক্লেমেন্ট লেংলেট, মিডফিল্ডার ফ্র্যাঙ্কি ডি ইয়ং, ফরোয়ার্ড ওসমান ডেম্বেলে, আঁতোয়া গ্রিজম্যান ও আনসু ফাতি।

বার্তামেউ’র তালিকা দেখেই বুঝা যায়, একঝাঁক তরুণদের নিয়েই আগামী মৌসুমের দল গড়তে চায় বার্সেলোনা। আর সেই হিসেবেই বাদ পড়ছেন ক্লাবের বেশকিছু হেভিওয়েট ফুটবলার।

ছাঁটাইয়ের শঙ্কায় থাকা ফুটবলাররা হলেন ক্লাব কিংবদন্তি জেরার্ড পিকে, জর্ডি আলবা, আর্তুরো ভিদাল, লুই সুয়ারেজ, ইভান র‌্যাকিটিচ, স্যামুয়েল উমতিতি, সার্জি রবার্তো ও সার্জিও বুসকেটসের মতো ফুটবলাররা।

তবে এদেরকে ছেড়ে দেয়াটা কি এতোই সহজ হবে বার্সেলোনার জন্য? এরইমধ্যে পিকে জানিয়ে দিয়েছেন, ক্লাবকে ঢেলে সাজানোর প্রয়োজনে তাকে বাদ দিতে হলে তিনি সানন্দ্যেই ক্লাব ছেড়ে দেবেন। যদিও এর আগে বেশ কয়েকবারই জানিয়েছেন, এই ক্লাবেই ক্যারিয়ার শেষ করতে চান তিনি।

যদিও বুসকেটস এবং সার্জি রবার্তো জানিয়ে দিয়েছেন, এখনই ক্লাব ছাড়তে চাননা তারা। ক্লাবও নাকি সেটি মেনেই নিচ্ছে। যাদেরকে বার্সা ছাঁটাইয়ে তালিকায় রেখেছে তাদের সঙ্গে চুক্তিগুলো একটু দেখে আসা যাক।

জেরার্ড পিকে: শৈশব-কৈশোর সবই এই ক্লাবে। বার্সা থেকেই ক্যারিয়ার শেষ করতে চান বলেও আগে বেশ কয়েকবার জানিয়েছেন তিনি। বেশ দারুণভাবেই সামলাচ্ছিলেন বার্সার রক্ষণভাগ। ক্লাবটির অন্যতম বড় ভরসাও যে তিনি! ক্লাব ছাড়তে চাইলে হয়তো ইউরোপের অনেক ক্লাবই তার দিকে হাত বাড়াবে। শেষপর্যন্ত একবুক অভিমান নিয়েই হয়তো ক্লাব ছাড়তে দেখা যাবে এই স্প্যানিশ সেন্টারব্যাককে।

সুয়ারেজ: বার্সার ইতিহাসেরই অন্যতম সেরা স্ট্রাইকার বনে গেছেন উরুগুইয়ান তারকা লুইস সুয়ারেজ। তবে বয়স তো থেমে নেই। এই মৌসুমে তার খেলায় দেখা গেছে বয়সের ছাপ। প্রত্যাশা মেটাতে পারেননি। কাতালানদের সঙ্গে তার চুক্তিও আছে আর এক বছর। এরইমধ্যে ক্লাব সভাপতির সুনজরে যে তিনি নেই সেটি জানা হয়ে গেছে। ইউরোপীয় গণমাধ্যমে এই খবর ছড়িয়ে পড়ার সাথে সাথেই তার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে বেশ কয়েকটি ক্লাব। এরমধ্যে রোনালদোর য়্যুভেন্তাস যেমন আছে তেমনি আছে তার সাবেক ক্লাব আয়াক্সও। মূলত মেসির আর্জেন্টাইন সতীর্থ লওতারো মার্টিনেজকে ক্লাবে ভেড়াতে সুয়ারেজকে বিক্রি করে দিতে চান বার্তামেউ। এই মৌসুমেই তাই সুয়ারেজকে বার্সা ছেড়ে যেতে দেখা যেতে পারে।

জর্ডি আলবা: বার্সার এই লেফটব্যাকের সঙ্গে চুক্তি ২০২৪ সাল পর্যন্ত। তার সঙ্গে গতবছরই চুক্তি নবায়ন করেছে ক্লাব। রিলিজ ক্লজ বেঁধে দিয়েছে ৫০০ মিলিয়ন ইউরো। করোনাকালের এই মন্দায় এতো দামে কেউ তাকে কিনতে আগ্রহী হবে কিনা সেটি নিয়েই উঠছে প্রশ্ন। আর কেউ তাকে কিনতে না চাইলে সেক্ষেত্রে বার্সাও তাকে ছাড়তে পারবেনা। কারণ চুক্তি আছে আরো অন্ততঃ তিন মৌসুম!

আর্তুরো ভিদাল: চিলিয়ান তারকার মৌসুমটা ভালো কাটেনি। তবে সবমিলিয়ে ইউরোপীয়ান ফুটবলে তার বেশ সুনাম আছে। আর সেটিকে কাজে লাগিয়েই হয়তো নতুন কোন ঠিকানায় পাড়ি জমাবেন এই মিডফিল্ডার।

ইভান র‌্যাকিটিচ: আগামী গ্রীষ্মে এই ক্রোয়েশিয়ান তারকার সঙ্গে চুক্তি শেষ হচ্ছে বার্সার। বয়স ছাড়িয়েছে ৩২। বার্সা সভাপতিও আর তাকে রাখতে আগ্রহী নন। এরইমধ্যে আরেক স্প্যানিশ ক্লাব সেভিয়া তাদের পুরনো সৈনিককে দলে ভেড়াতে আগ্রহ প্রকাশ করেছে। শেষপর্যন্ত হয়তো নিজের পুরনো ঠিকানায় ফিরে যাবেন এই ক্রোয়াট মিডফিল্ডার।

উমতিতি: ফরাসী এই ডিফেন্ডারকে নিয়ে বেশ অস্বস্তিতেই আছে কাতালানরা। হুটহাট ইনজুরিতে পড়ার প্রবণতায় ক্লাবের পরিকল্পনায় তাকে রাখা মুশকিল হয়ে দাঁড়িয়েছে। ক্লাবের সঙ্গে তার চুক্তিটা ২০২৩ সাল পর্যন্ত। ক্লাব তাই তাকে বিদায় বলে দিতেও পারছেনা। তবে উমতিতি যদি ক্লাব ছেড়ে অন্য কোথাও পাড়ি জমান তাতে বেশ খুশিই হবে সবাই, সেটি পরিষ্কার।








Leave a reply