একসঙ্গে পাঁচ সন্তান প্রসব করলেন চাঁদপুরে এক নারী

|

চাঁদপুরের কচুয়ায় এক মা একসঙ্গে পাঁচ সন্তান প্রসব করেছেন । তবে প্রসবের পরপরই হাসপাতালেই মারা যায় তিন শিশু আর পরে বাসায় নিয়ে যাওয়ার পর বাকি দুটিরও মৃত্যু হয়।

পাঁচ সন্তান জন্মদানের এমন ঘটনা ঘটেছে কচুয়া টাওয়ার হাসপাতাল নামে বেসরকারি একটি ক্লিনিকে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শনিবার রাত সাড়ে ৮টায় প্রসবব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন মারুফা বেগম (২৫)।

শনিবার (১৫ আগস্ট) রাতে এই ঘটনা ঘটেছে। প্রসবের পরপরই তিন শিশু মারা যায়। বাকি দুই শিশু জীবিত থাকলেও রোববার (১৬ আগস্ট) সকালে একে একে তারাও মৃত্যুর কোলে ঢোলে পরে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শনিবার রাত সাড়ে আটটার দিকে প্রসব ব্যথা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন মারুফা বেগম (২৫) এক প্রসূতি।

প্রসূতির বর্ণনা শুনে হাসপাতালের চিকিৎসক তাকে আল্ট্রাসনোগ্রাম করেন। এসময় প্রসব ব্যথা তীব্র হতে শুরু করলে মারুফা বেগমকে দ্রুত অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে স্বাভাবিকভাবে পরপর পাঁচটি সন্তান প্রসব করেন মারুফা বেগম।

এরমধ্যে চারটি ছেলে এবং একটি মেয়ে সন্তানও রয়েছে। তবে অপরিণত হওয়ায় জন্মের অল্পে সময় পরেই তিন শিশু মারা যায়। রাতেই জীবিত অন্য দুই শিশু নিয়ে হাসপাতাল ত্যাগ করেন ওই প্রসূতি মা। তবে রোববার সকালে জীবিত থাকা দুই শিশুও মৃত্যুর কোলে ঢোলে পরে।

কচুয়া টাওয়ার হাসপাতালের চিকিৎসক সিনথিয়া সাহা জানান, মূলত অপরিণত হয়ে জন্ম হওয়ায় পাঁচ শিশুই মারা যায়।

জানা গেছে, কুমিল্লার চান্দিনা উপজেলার বরকড়ই গ্রামের কৃষক মো. ইউনুসের স্ত্রী মারুফা বেগম। তবে প্রসব ব্যথার আগে মারুফা তার বাবার বাড়ি চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলার আন্দিরপাড়ে অবস্থান করছিলেন।








Leave a reply