ভ্রমণ হোক বা চিকিৎসা , বাংলাদেশীদের এবার ভারতে আসতে হলে মানতে হবে এই নতুন শর্তগুলো

|

মানতে হবে নতুন শর্ত । তবেই এবার ভারতে প্রবেশের অনুমতি পাবেন বাংলাদেশের নাগরিকরা। বছরের যে কোনও সময় চিকিৎসা ও ভ্রমণের জন্য ভারতে আসেন বাংলাদেশীরা। ভারত ও বাংলাদেশ, দুই বন্ধু দেশে নাগরিকদের যাতায়াতে তেমন কোনও বাধা নেই। তবে এখন পরিস্থিতি আলাদা। করোনার প্রকটে তাই দুই দেশের মধ্যে যাতায়াত অবাধ থাকলেও কয়েকটি শর্ত মানতে হবে। বেনাপোল ইমিগ্রেশনের তরফে জানানো হয়েছে, ব্যবসা, চিকিৎসা বা ভ্রমণ. যে কোনও কারণে ভারতে যেতে হলে বাংলাদেশীদের কয়েকটি শর্ত এবার থেকে মানতে হবে।

পাসপোর্টসহ বাংলাদেশী যাত্রীদের আগে যোগাযোগ করতে হবে ভারতীয় হাই-কমিশনের সঙ্গে। যাত্রীর সঙ্গে থাকতে হবে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট। সেই সার্টিফিকেট ৭২ ঘণ্টার বেশি পুরনো হলে গ্রাহ্য হবে না। এছাড়াও ২০২০ সালের পয়লা জুলাইয়ের পর ইস্যু করা ভিসা জমা দিতে হবে। তবে গিয়ে এদেশে ঢোকার ছাড়পত্র পাবেন যে কোনও বাংলাদেশী। করোনা পরিস্থিতিতে এমনিতে বিভিন্ন দেশ এখনও ভিনদেশীদের প্রবেশ অবাধ করেনি। কয়েকটি দেশ শর্তসাপেক্ষে পর্যটকদের প্রবেশের অনুমতি দিচ্ছে।

কোনো ভারতীয় এই পরিস্থিতিতে বাংলাদেশে যেতে চাইলে ভিসা ও পাসপোর্ট ছাড়াও তাঁর কাছে রাষ্ট্র মন্ত্রকের অনুমতিপত্র থাকতে হবে। এছাড়া তাঁরও করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট দেখাতে হবে। সেই সার্টিফিকেট ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ইস্যু করা হতে হবে। করোনা পরিস্থিতিতে অনেক ভারতীয় আটকে রয়েছেন বাংলাদেশে। লকডাউনের জেরে দেশে ফিরতে পারেননি তাঁরা। তাঁদের দেশে ফেরার ক্ষেত্রেও একইরকম শর্ত থাকবে। ১৩ মার্চ থেকে বেনাপোল দিয়ে বাংলাদেশী পাসপোর্টধারী যাত্রীদের ভারতে প্রবেশ বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। ২২ মার্চ থেকে বেনাপোল দিয়ে রেল ও স্থল পথে ভারত সরকার বাংলাদেশের সঙ্গে আমদানি-রফতানি বাণিজ্য বন্ধ করে দিয়েছিল। তবে রেল ও স্থল পথে আমদানি-রফতানি আবার শুরু হয়েছে। 








Leave a reply