বিশাল ভুঁড়ির জন্য বেঁচে গেলেন!না হলে কুয়োয় পড়ে প্রাণ হারাতে পারতেন এই ব্যক্তি

|

তাকে কত টিটকিরিই না হজম করতে হয়েছে মোটা বলে! কত লোকে পরামর্শ দিয়েছেন, এমন চেহারা হলে শরীরে রোগ বাসা বাঁধবে। কিন্তু কেউ কী জানত, তিনি একদিন প্রাণে বেঁচে যাবেন স্রেফ মোটা বলে! তাঁর জায়গায় অন্য কোনো রোগা ব্যক্তি হলে তো এতক্ষণে মারা যেতেন। কিন্তু তিনি বেঁচে গেলেন স্রেফ বিশাল ভুঁড়ির জন্য। ২৮ বছর বয়সী লিউয়ের ওজন ৫০০ পাউন্ড। হাঁটতে, চলতে এমনি তাঁর খুব একটা অসুবিধা হয় না। তবে লোকের থেকে অনেক পরামর্শ, টিটকিরি শুনতে হয়। ছোট থেকেই স্থূলকায় চেহারা তাঁর। আর সেই চেহারাই এবার তাঁকে প্রাণে বাঁচিয়ে দিল।

লিউ মানসিকভাবে সুস্থ নয়। চিনের হেনান প্রদেশে তাঁর বাড়ি। আর সেই বাড়িতে রয়েছে একটি কুয়ো। সেই কুয়োর মুখ খুব একটা চওড়া নয়। তবে কুয়োটি গভীর। এখন অবশ্য সেই কুয়োয় জল নেই। তবে গর্তটা তো রয়েছে। আর তাই বাড়ির লোক সেই কুয়োর উপর কিছু কাঠ চাপা দিয়ে রেখেছিলেন। লিউ খেলতে গিয়ে সেই কাঠের উপর লাফ দেয়। তাঁর ভার রাখতে না পেরে কাঠের টুকরো ভেঙে যায়। লিউ আটকে যান কুয়োর গর্তের মুখে। তাঁর বিশাল ভুঁড়ি ফেঁসে যায় কুয়োর মুখে। যার ফলে তিনি আর কুয়োর ভিতর পড়েননি। ভুঁড়ি না থাকলে কিন্তু লিউয়ের বড় বিপদ হতে পারত। এর পরই উদ্ধারকারী দল এসে লিউকে কুয়োর মুখ থেকে দড়ির সাহায্যে টেনে তোলে।

কুয়োর মুখে কয়েক ঘণ্টা আটকে ছিলেন লিউ। তাঁর এই দুর্ঘটনার একটি ভিডিয়ো সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। সেখানে অনেকেই বলছেন, মোটা হওয়ার অনেক ভাল দিক রয়েছে। লিউয়ের ঘটনা তা প্রমাণ করল। পাঁচজনের একটি উদ্ধারকারী দল এসে লিউকে কুয়োর মুখ থেকে টেনে তোলে। কয়েক ঘণ্টা কুয়োর মুখে আটকে ছিলেন লিউ। তাঁর বাড়ির লোক সেই কুয়ো এবার বুজিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 








Leave a reply