BREAKING : রাম মন্দিরের পরে এবার মোদি, মুখ খুলে বিতর্কে অভিনেতা দেব

|

রাম মন্দির নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে শোরগোল ফেলেছিলেন অভিনেতা দেব। সেই বিতর্কের রেশ কাটতে না কাটতেই আবার নতুন বিতর্কে জড়ালেন তিনি। রাম মন্দির নিয়ে তার মন্তব্যে ক্ষুব্ধ হয়েছিল রাম ভক্তরা। সেই ক্ষোভ দূর করতে গতকাল এক অনলাইন সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ” আমি আদৌ রাম মন্দিরের বিরুদ্ধে নই। রাম মন্দির নির্মাণ কাজ শেষ হলে আমি সপরিবারে গিয়ে পুজো দিয়ে আসবো। আমি শুধু এক প্রশ্নের উত্তরে বলেছিলাম, এই মুহূর্তে দেশের সামনে সবচেয়ে প্রয়োজন হলো ভালো হাসপাতাল। এই মুহূর্তে মন্দিরের থেকেও হাসপাতাল বেশি জরুরি। আমি আদৌ মন্দিরের বিরুদ্ধে নই। আমি শুধু এই মুহূর্তের অগ্রাধিকারের কথা বলেছিলাম। এই মন্তব্য করার পরই মোদি নিয়ে মুখ খোলেন দেব। সঙ্গে সঙ্গে শুরু হয়েছে বিতর্ক। এই বিতর্ক শুরু হয়েছে দলের অন্দরেই। দলীয় নেতৃত্ব যা নিয়ে খুশি নয়।

অনলাইন ইন্টারভিউতে তিনি বলেছেন, এই মুহূর্তে মোদি হলেন দেশের অন্যতম শ্রেষ্ঠ নেতা। শুধু তাই নয়, দেশে জনপ্রিয়তার প্রশ্নে তিনি এখন এক নম্বরে। চলচিত্র তারকা শাহরুখ খান কিংবা সালমান খানের থেকে তার অনুগামী অনেক অনেক বেশি। তার অনুগামীর সংখ্যা এখন সবচেয়ে বেশি। এরপরেই তিনি যোগ করেন,” নেতা হিসেবে তাকে ভালো লাগে, অন্য দল করি বলে এটা বলতে পারবো না, সেই ধারণায় আমি বিশ্বাস করি না। ফলে উনি এই সঙ্কটের সময়ই দেশবাসীর কাছে যা যা অনুরোধ করেছেন গোটা দেশ সেই অনুরোধ রক্ষা করেছে। আমিও তার তাঁর কথা শুনে থালা বজিয়েছি। শঙ্খ ধ্বনি দিয়েছি। সেইসব ছবি আমি পোস্টও করেছি।

মোদি দেশের শ্রেষ্ঠ নেতা, তার কথা সবাই শোনে, আমিও শুনি, এসব বলেই দলের অন্দরে অনেকের চোখেই নায়ক দেব হয়ে হয়েছেন খল নায়ক দেব। প্রকাশ্যে মোদি বন্দনায় সায় নেই তাদের। প্রতিপক্ষ দলের সংসদ হয়ে উল্টো শিবিরের শীর্ষ নেতাকে প্রশংসায় ভরিয়ে দেওয়া ভারতীয় রাজনীতির দস্তুর নয়। স্বভাবতই বিতর্ক তৈরি হয়েছে। কিছুদিন আগেও নিজের দলকে কাঠগড়ায় তুলেছিলেন দেব। করোনা নিয়ে সংখ্যা চেপে যাওয়া, রাজনীতি হওয়া, ত্রাণ সামগ্রী নিয়ে দুর্নীতি, এসব প্রশ্নে এমন সব মন্তব্য করেছিলেন যে তৃনমূল কংগ্রেসকে চরম অস্বস্তির মধ্যে পড়তে হয়েছিল। আবার সেই অস্বস্তি তৈরি করলেন এই চিত্র তারকা।








Leave a reply