ঘরোয়া উপায়ে চুলকানি সমস্যা থেকে কিভাবে মুক্তি পাবেন

|

চুলকানি এবং  স্ক্র্যাচিংয়ের সময় প্রথমে ফোলা সমস্যা দেখা দেয়। প্রায়শই অনেকের শরীরে চুলকানির সমস্যা থাকে। অনেক সময় স্ক্র্যাচিংয়ের  কারণে শরীরে চুলকানি শুরু হয়। চুলকানি থেকে মুক্তি পেতে আপনি কী করবেন? অনেকে তেল মালিশ করেন, তারপরে কিছু ক্রিম লাগান, তবে এখানে চুলকানি থেকে মুক্তি পাওয়ার সহজ ঘরোয়া প্রতিকার সম্পর্কে আমরা আপনাকে বলতে যাচ্ছি। চুলকানির কারণে শরীরে লাল দাগ পড়তে পারে।  অনেক অনেক সময় খারাপ জল পান করা বা খারাপ জলে স্নান করার পরেও চুলকানির সমস্যা শুরু হয়। যা মাঝে মাঝে বড় সমস্যা হয়ে উঠতে পারে। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে চুলকানি থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য এখানে কয়েকটি ঘরোয়া উপায় রয়েছে যা আপনি চেষ্টা করতে পারেন।

চুলকানি দূর করার ঘরোয়া উপায় 

১. বেকিং সোডা এবং লেবু

যদি আপনার চুলকানির সমস্যা হয় তবে প্রথমে স্নানের জন্য পরিষ্কার জল ব্যবহার করুন। এছাড়াও আপনি জলে এক চা চামচ বেকিং সোডা এবং কয়েক চামচ লেবুর রস যোগ করতে পারেন। এই ঘরোয়া প্রতিকারটি সপ্তাহে কমপক্ষে ২ থেকে ৩ বার ব্যবহার করে দেখুন। লেবু এবং বেকিং সোডা ত্বক উপশমের জন্য উপকারী বলে মনে করা হয়।

২. তুলসী

চুলকানি থেকে মুক্তি পেতে আপনি বডি ম্যাসাজও করতে পারেন। এর জন্য আপনি তুলসী ব্যবহার করতে পারেন। তুলসীর কয়েকটি পাতা পিষে নারকেল তেলে মিশিয়ে ত্বকে মালিশ করুন, চুলকানি থেকে মুক্তি পাবেন। এই প্রতিকারটি শরীর থেকে ছত্রাক দূর করতে সহায়তা করতে পারে।

৩. নিম

অনেক স্বাস্থ্য সমস্যার বিরুদ্ধে নিম ব্যবহার করা হয়। এমন পরিস্থিতিতে চুলকানির থেকে স্বস্তি পেতে নিম ব্যবহার করতে পারেন। নিম পাতা পিষে আক্রান্ত স্থানে লাগান। চুলকানি থেকে মুক্তি পেতে এটি কেবল কার্যকর ঘরোয়া উপায় হতে পারে না, তবে চুলকানি থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য এটি একটি প্রাকৃতিক উপায়।

৪. চন্দন কাঠ ব্যবহার করুন

চন্দন কাঠ একটি আয়ুর্বেদিক জিনিস যা আয়ুর্বেদে বিভিন্ন উপায়ে ব্যবহৃত হয়। কেবলমাত্র চন্দনের সুগন্ধই অপূর্ব নয়, এটি শরীর থেকে চুলকানির সমস্যা দূর করতেও উপকারী বলে বিবেচিত হয়। চুলকানি থেকে মুক্তি পেতে চুলকানি হয় এমন জায়গায় চন্দন কাঠ লাগান।

৫. নারকেল তেল

নারকেল তেলের অনেক গুণ রয়েছে যা ত্বকে উপকার করতে পারে। চুলকানি দূর করতে নারকেল তেলও ব্যবহার করা যেতে পারে। ত্বকে নারকেল তেল প্রয়োগ করে ত্বকের আর্দ্রতা দীর্ঘকাল ধরে থাকে। এটি আরাম দেয়। আপনি প্রতিদিন ত্বকে নারকেল তেল মালিশ করতে পারেন। 








Leave a reply