খেজুরের উপকারিতা জেনে নিন

|

অন্তত দুটি খেজুর যদি প্রতিদিন খাওয়া যায় তবে ধারে কাছে ভিড়বে না অনেক রোগ। প্রতি ১০০ গ্রাম খেজুরে ০.০৯ গ্রাম আয়রন থাকে। পুষ্টিবিদদের মতে, শরীরের প্রয়োজনীয় আয়রনের অনেকটাই এই খেজুর থেকে মেলে। চারটি বা ৩০ গ্রাম পরিমাণ খেজুরে আছে ৯০ ক্যালোরি, এক গ্রাম প্রোটিন, ১৩ মি.লি. গ্রাম ক্যালসিয়াম, ২ দশমিক ৮ গ্রাম ফাইবার। এছাড়াও খেজুরের রয়েছে আরও অনেক পুষ্টি উপাদান। জেনে নিন খেজুরের উপকারিতা।

  • প্রতিটি খেজুরে রয়েছে ২০ থেকে ২৫ মিলিগ্রাম ম্যাগনেসিয়াম যা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।
  • রক্তস্বল্পতায় ভোগা রোগীদের জন্য খেজুর খুবই উপকারী। একজন সুস্থ মানুষের শরীরে যতটুকু আয়রন প্রয়োজন, তার প্রায় ১১ ভাগ পূরণ করে খেজুর।
  • হৃদস্পন্দনের হার ঠিক রাখতে সাহায্য করে খেজুরে থাকা নানা খনিজ।
  • খেজুরে লিউটেন ও জিক্সাথিন থাকায় তা রেটিনা ভালো রাখে।
  • খেজুরের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা রাখে। এতে প্রচুর ভিটামিন, খনিজ, ক্যালসিয়াম ও পটাশিয়াম আছে।
  • ফাইবার মেলে খেজুর থেকে। তাই এই ফল ডায়েট লিস্টে রাখতে পারেন নিশ্চিন্তে।
  •  পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ ও প্রাকৃতিক আঁশে পূর্ণ খেজুর ক্যান্সার প্রতিরোধ করে। তাই যারা নিয়মিত খেজুর খান, তাঁদের বেলায় ক্যান্সারের ঝুঁকিটাও অনেক কম থাকে।
  • চিনির অন্যতম সেরা বিকল্প খেজুরের রস ও গুড়। আজকাল খেজুরের গুঁড়কেও চিনির পরিবর্তে ব্যবহার করা হয়। তাই চিনির ক্ষতি এড়াতে খেজুর ব্যবহার করতেই পারেন।
  • কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যায় ভুগলেও আপনাকে সাহায্য করতে পারে খেজুর। রাতে পানিতে খেজুর ভিজিয়ে রাখুন। পরদিন সকালে খেজুর ভেজানো পানি পান করুন। খেজুরও খেয়ে নিন। দূর হবে কোষ্ঠকাঠিন্য।








Leave a reply