সিএসকে’র প্রত্যাবর্তনে ধোনির নেতৃত্বের প্রশংসায় বীরু

|

এ ভাবেও ফিরে আসা যায়! একটা সময় ভারতীয় দলে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের প্রত্যাবর্তনে এই ক্যাচলাইনটাই লেখা হত বাংলা সংবাদমাধ্যমে৷ রবিবার দুবাইয়ে আইপিএলে চেন্নাই সুপার কিংসের জয়ের পর এই লাইনটা লেখা যায়৷ হারের হ্যাটট্রিকের পরের ম্যাচে ১০ উইকেটে জয় ধোনির সুপার কিংস-এর পক্ষেই সম্ভব৷

রবিবাসরীয় রাতে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ১৭৯ রান তাড়া কর কোনও উইকেট না-হারিয়ে চেন্নাই সুপার কিংসের ম্যাচের প্রশংসা শোনা গেল সিএসকে ফ্যান ও প্রাক্তন ক্রিকেটারদের মুখে৷ তবে এ জয়ের পিছনে ধোনির তুখোড় নেতৃত্বের প্রশংসা করলেন ভারত তথা কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের প্রাক্তন ওপেনার বীরেন্দ্র সেহওয়াগ৷

প্রথম চার ম্যাচে টানা তিনটিতে হেরে পয়েন্ট তালিকায় সবার শেষে থাকা সুপার কিংস তাদের পঞ্চম ম্যাচে পঞ্জাবের বিরুদ্ধে ১০ উইকেটে জয় পায়৷ সেই সঙ্গে ৮ দলের টুর্নামেন্টে লিগ তালিকায় ৬ নম্বরে উঠে আসে সিএসকে৷ দুবাই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করে ৪ উইকেটে ১৭৮ রান তুলেছিল কিংস ইলেভেন৷ রান তাড়া করতে নেমে কোনও উইকেট না-হারিয়ে ১৪ বল বাকি থাকতেই ম্যাচ জিতে নেয় সুপার কিংস৷

পঞ্জাবের এই হার প্রসঙ্গে সেহওয়াগ বলেন, ‘কেবলমাত্র পঞ্জাব দুবাইয়ে প্রথম ব্যাটিং করে ম্যাচ হারতে পারে৷’ তবে এর পাশাপাশি সুপার কিংস অধিনায়ক ধোনির প্রশংসা করেন বীরু৷ পঞ্জাব ইনিংসের ১৮তম ওভারে ধোনির বোলিং পরিবর্তন দারুণ কাজে আসে৷ এই ওভারে দুই সেট ব্যাটসম্যান নিকোলাস পুরান ও লোকেশ রাহুলকে তুলে নিয়ে পঞ্জাবকে ব্যাকফুটে ঠেলে দেন শার্দুল ঠাকুর৷

তাঁর ফেসবুকে একটি ভিডিও আপলোড করেন কিংস ইলেভেনের প্রাক্তন ওপেনার সেহওয়াগ৷ তিনি বলেন, ‘১৮তম ওভারটাই ম্যাচের টার্নি পয়েন্ট৷ যেখানে গব্বর এমএস ধোনির ক্যাপ্টেনসি, জাড্ডুর ফিল্ডিং এবং শার্দুল ঠাকুরের বোলিংয়ে ম্যাচে ফিরেছিল সিসএকে৷’

তারপর রান তাড়া করতে নেমে সিএসকে-কে স্বপ্নের জয় এনে দেন দুই ওপেনার শেন ওয়াটসন ও ফ্যাফ ডু’প্লেসিস৷ ১৭৮ রান তাড়া করে ১৭.৪ ওভারে কোনও উইকেট না-হারিয়ে ম্যাচ জিতে নেয় চেন্নাই সুপার কিংস৷ ডু’প্লেসিস ৮৭ এবং ওয়াটসন ৮৩ রানে অপরাজিত থাকেন৷ দু’জনেই সমসংখ্যক বল খেলেন৷ ৫৩ বলের ইনিংসে ওয়াটসন ১১টি বাউন্ডারি ও তিনটি ওভার বাউন্ডারি মারেন৷ আর ডু’প্লেসিস মারেন ১১টি বাউন্ডারি ও একটি ওভার বাউন্ডারি৷

৩৯ বছরের প্রাক্তন অজি ওপেনারের প্রশংসা করে বীরু বলেন, ‘১৯ সেপ্টেম্বর আইপিএল শুরু হলেও ওয়াটসনের ডিজেল ইঞ্জিন অবশেষে স্টার্ট নিয়েছে৷ ওয়াটসন এবং ‘সাম্বা’ ফ্যাফ ডু’প্লেসি দু’জনে পঞ্জাবের ছেলেদের স্টেডিয়াম সফর করান৷ মাঠের সর্বত্র বল পাঠান৷’

এদিন ওয়াটসন-ডু’প্লেসির ওপেনিং জুটি আইপিএলের ইতিহাসে চতুর্থ এবং ২০২০ আইপিএল দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটির পার্টনারশিপের রেকর্ড করে৷ এদিন দু’জনে ইনিংস শুরু করতে নেমে অবিভক্ত ১৮১ রানের পার্টনারশিপ গড়েন৷ এর আগে চলতি আইপিএলে রাজস্থান রয়্যালসের বিরুদ্ধে ১৮৩ রানের ওপেনিং পার্টনারশিপ গড়েছিলেন কিংস ইলেভেনের দুই ওপেনার লোকেশ রাহুল ও ময়াঙ্ক আগরওয়াল৷








Leave a reply